ধাপে ধাপে নরওয়েতে উচ্চশিক্ষা

ধাপে ধাপে সাইপ্রাসে উচ্চশিক্ষা
November 15, 2016
ধাপে ধাপে সুইডেনে উচ্চশিক্ষা
November 15, 2016

সংক্ষিপ্ত পরিচিতি: 

নরওয়ে ইউরোপে অবস্থিত স্কেন্ডেনেভীয় একটি দেশ। ইউরোপের চারটি নরডিক দেশের মধ্যে নরওয়ে একটি। বিশ্বে যে কয়টি শান্তিপূর্ণ দেশ রয়েছে সেগুলোর মধ্যে নরওয়ে অন্যতম। দেশটির রাজধানী অসলো এবং এটি দেশের সবচেয়ে বড় শহর। নরওয়ের ভাষা হচ্ছে নরওয়েজিয়ান এবং মুদ্রা নরওয়েজিয়ান ক্রুন/ক্রুনা। অর্থনৈতিক দিক থেকে খুবই শক্তিশালী একটি দেশ নরওয়ে। দেশটির জিডিপি (নমিনাল) ৭৩৪৫০ ইউএস ডলার যা বিশ্বে ৩য়। অনেক বৈচিত্র্যময় দেশ নরওয়ে। এ দেশে কখনও কখনও গভীর রাতেও সূর্য দেখা যায় যার কারণে নরওয়ে কে বলা হয় “নিশীথ সূর্যের দেশ” । এর আশেপাশের দেশগুলো হচ্ছে ফিনল্যান্ড, রাশিয়া এবং ডেনমার্ক।
 

শিক্ষার মান ও গ্রহণযোগ্যতাঃ

নরওয়ে এর শিক্ষার মান খুবই উন্নত এবং ডিগ্রি সার্বজনীন স্বীকৃত। দেশটিতে বেশকিছু ভাল মানের ইউনিভার্সিটি রয়েছে যাদের পড়াশোনা ও গবেষণার মান বেশ ভাল এবং বিশ্ব রেঙ্কিং এ বেশ এগিয়ে।
কিছু বিখ্যাত ইউনিভার্সিটি হচ্ছেঃ
 
ইউনিভার্সিটিতে ভর্তির তথ্য ও ডকুমেন্টসঃ
একাডেমিক ও ভাষাগত যোগ্যতাঃ
<<একাডেমিক>>
১। একাডেমিক পরিক্ষায় কমপক্ষে ৫০% নম্বর থাকা ভাল।
২। কমপক্ষে এইচ + ১ বছর বাংলাদেশী ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা থাকতে হবে (ব্যাচেলরে অ্যাপ্লাই এর জন্যে), বিস্তারিত এখানেঃ http://goo.gl/CmPpG3
৩। কমপক্ষে ৩ বছর মেয়াদী ব্যাচেলর (মাস্টার্সে অ্যাপ্লাই এর জন্যে)
৪। কমপক্ষে ২ বছর মেয়াদী মাস্টার্স (পিএইচডি/ডক্টোরাল প্রোগ্রাম এর জন্যে)
<<ভাষাগত যোগ্যতা>>
কমপক্ষে IELTS ৬ থাকতে হবে।
বিঃদ্রঃ নরওয়েতে কোন ভাষা শিক্ষা কোর্সে ভর্তির সুযোগ নেই। 
 

টিউশন ফিঃ

নরওয়েতে সরকারী ইউনিভার্সিটিগুলোতে কোন টিউশন ফি প্রদান করতে হয় না। তবে প্রতি সেমিস্টারে সেমিস্টার ফি বাবদ ৩০০ – ৬০০ নরওয়েজিয়ান ক্রুন দিতে হয়।

 

 

স্কলারশিপঃ

নরওয়েতে আগে কোটাভিত্তিক স্কলারশিপের সুযোগ ছিল যেখানে বাংলাদেশও এই কোটাভিত্তিক স্কলারশিপে আবেদন করতে পারতো। কিন্তু সেটা এখন বন্ধ আছে। তবে অন্যান্য স্কলারশিপ থাকতে পারে।
স্কলারশিপ খুঁজুন এখানেঃ http://www.studyinnorway.no/Study-Norway/Scholarships
আবেদনের সময়সীমাঃ আবেদনের সময়সীমা জানতে হলে আপনাকে সরাসরি ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইট এ খোঁজে দেখতে হবে কারণ একেক ইউনিভার্সিটিতে একেক সময় দিতে পারে। তবে সাধারণত নভেম্বর/ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত বিদেশী শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারে। বলে রাখা ভাল, কিছু ইউনিভার্সিটিতে কোন কোন ক্ষেত্রে প্রি-যোগ্যতার শর্ত থাকে, তাই একটু আগে থেকেই ভাল করে ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইট এ চোখ রাখা ভাল।
ভর্তির জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসঃ
অবশ্যই ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইট এ দেখে নিবেন। এখানে সাধারণত যেসব ডকুমেন্টস দরকার সেগুলো দেওয়া হল।
  • অনলাইন/অফলাইন অ্যাপ্লিকেশান
  • সকল একাডেমিক ডকুমেন্টস
  • ভাষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট
  • পাসপোর্ট কপি (কমপক্ষে ১ বছর মেয়াদ থাকতে হবে)
  • পাসপোর্ট সাইজ ছবি
  • স্টেটমেন্ট অব পারপাস/মোটিভেশন লেটার
  • চাকরির অভিজ্ঞতার সার্টিফিকেট (যদি থাকে)
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট (আবেদনকারীর একাউন্ট)
নোটঃ সকল ডকুমেন্টস অবশ্যই সত্যায়িত হতে হবে। যদি ইংরেজিতে না থাকে তাহলে ডকুমেন্টসগুলো ইংরেজিতে অনুবাদ করে নোটারি করতে হবে। 
 

ভিসা সংক্রান্ত তথ্যঃ

ভর্তির লেটার পাওয়ার পর আপনাকে নরওয়ের ব্যাংকে নরওয়েজিয়ান মুদ্রায় ১০৩৯৫০ (NOK) পাঠাতে হবে (স্কলারশিপ প্রাপ্তদের জন্য নয়)। আপনার ইউনিভার্সিটি বলে দিবে কোন একাউন্টে পাঠাবেন এবং প্রক্রিয়া কি। ভিসা না হলে পুরু টাকাই ইউনিভার্সিটি আপনাকে ফেরত দিবে।

 

Documentation of subsistence 
 (loan from the Norwegian State Educational Loan Fund or deposits in a Norwegian bank).

Subsistence is ensured at NOK 103 950,- for the school year 2016/2017. If you plan to attend an institution/programme/course that has tuition fees, you must also document that you are able to finance this extra cost.

 
 As a general rule, the Norwegian Directorate of Immigration requires the money to be deposited in a Norwegian bank account, and this account must be in the applicant’s name. If the educational institution has set up an account for the students, the student may transfer his/her funds to this account. Documentation in this case should include a statement from the institution confirming that the correct amount is deposited to the account in question, or a bank statement showing a balance for the correct amount.The applicant may apply for part-time work in Norway and submit this as part of the grounds for subsistence. However, the total amount for subsistence will then be higher.As a general rule, financial guarantees from a third person is not accepted, whether this person is a resident in Norway or another country. In special cases financial guarantees from an applicant's parents may be accepted if they are Norwegian residents.
রেসিডেন্স পারমিট এর জন্য অ্যাপ্লাই করতে প্রথমে এখানে যানঃ https://www.udi.no/en/want-to-apply/studies এখানে গিয়ে আপনার দেশের নাম ও কোন দেশের নাগরিক সেটা পছন্দ করে চেক করুন। তারপরে এখানে গিয়ে অ্যাপ্লাই করুনঃ https://selfservice.udi.no/en-gb
ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসঃ
  • স্টুডেন্ট রেসিডেন্ট পারমিট অ্যাপ্লিকেশান ফর্ম (পাসপোর্ট সাইজ ছবিসহ)
  • পাসপোর্ট কপি
  • ইউনিভার্সিটির অফার লেটার
  • স্টেটমেন্ট অব পারপাস/মোটিভেশন লেটার
  • হাউজিং ডকুমেন্ট
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট এবং ব্লক একাউন্ট কনফার্মেশন
**ডকুমেন্ট চেকলিস্টঃ http://www.studyinnorway.no/Study-Norway/Student-residence-permit

পার্ট-টাইম জব ও অন্যান্য তথ্যঃ

নরওয়েতে বিদেশী শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে ২০ ঘণ্টা কাজের অনুমতি পায়। তবে সামার ভেকেশনে ফুল টাইম কাজ করতে পারবেন। থাকা-খাওয়ার খরচ একটু বেশি। প্রায় ৪০০-৮০০ ইউরো। তবে জব পেলে এই খরচ বহন করা সম্ভব। আর জব পেতে হলে নরওয়েজিয়ান ভাষা জানা থাকা অত্যাবশ্যক।

স্থায়ী বসবাসঃ

বৈধভাবে একটানা ৩ বছর বা তার অধিক থাকার পর পিআর এর জন্যে অ্যাপ্লাই করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আপনার ভাষাগত যোগ্যতা, নির্দিষ্ট সময় ফুল টাইম জব ইত্যাদিও থাকা লাগবে। বিস্তারিত এখানে দেখুনঃ https://www.udi.no/en/want-to-apply/permanent-residence/
 
আরও বিস্তারিত জানুনঃ
নরওয়েজিয়ান এমব্যাসি বাংলাদেশঃ https://www.norway.no/en/bangladesh/
 

 

ফেসবুক মন্তব্য
Mahedi Hasan
Follow Me

Mahedi Hasan

স্বপ্নদর্শী ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু শিখতে ও জানতে ভাল লাগে। নিজে যা জানি সেটা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।
Mahedi Hasan
Follow Me
 
শেয়ার করুনঃ
Mahedi Hasan
Mahedi Hasan
স্বপ্নদর্শী ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু শিখতে ও জানতে ভাল লাগে। নিজে যা জানি সেটা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *