ইরাসমুস মুন্ডুস মাস্টার্সঃ ২ বছরে ৩১ লাখ টাকা
December 14, 2018

আইইএলটিএস (IELTS) সম্পর্কে বারটি (১২) টি ভ্রান্ত ধারণা!

Contents

আইইএলটিএস – আন্তর্জাতিক ইংরেজি ভাষা দক্ষতা যাচাই পরীক্ষা, শব্দটার সাথে মোটামুটি সবাই পরিচিত। সাধারণত ইংরেজিতে কথা বলে বা ইংরেজি ভাষী কোন দেশে স্থানান্তর বা প্রফেশন, অথবা উচ্চশিক্ষা বা স্কলারশিপ এর ক্ষেত্রে এই ভাষা দক্ষতার সনদ দরকার হয়। এই পরিক্ষা ২ ধরণের, একাডেমিক ও জেনারেল টেস্ট। একাডেমিক টেস্ট লাগে উচ্চশিক্ষা বা স্কলারশিপ জন্য, অপরদিকে জেনারেল টেস্ট দিতে হয় ইংরেজি ভাষী দেশে স্থানান্তর বা প্রফেশনাল চাকুরির জন্য। এসব অবশ্য সবারই জানা। কিন্তু আজকে হাজির হয়েছি এই পরিক্ষার ধরণ বা পরামর্শমূলক কথা-বার্তা বলার জন্য নয়। এসব বিষয়ে ব্লগে অনেক লেখালেখি হয়েছে। আইইএলটিএস নিয়ে আমাদের অনেকের মধ্যেই বেশকিছু ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে, ভ্রান্ত ধারণা যে শুধুমাত্র আমাদের দেশ তথা বাংলাদেশেই আছে তা কিন্তু নয়। এরকম ভ্রান্ত ধারণা বিশ্বের প্রায় সব দেশেই আছে। আজ হাজির হয়েছি সেসব ভ্রান্ত ধারণা সম্পর্কে কিছু বলার জন্য। আইইএলটিএস সম্পর্কে এমন ১২ টি ভ্রান্ত ধারণা নিয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিল এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে একটি আর্টিকেল লেখা আছে। আমি শুধুমাত্র সেগুলোই বাংলায় নিজের মত করে তুলে ধরার চেষ্টা করছি।

 

Photo: British Council

 

১। আইইএলটিএস (IELTS) ব্যান্ড স্কোর – ৯ শুধুমাত্র ইংরেজি ভাষীদের জন্য

এটি সবসময় এমন নয় যে একজন নেটিভ স্পিকার একজন অ-নেটিভ স্পিকারের চেয়ে ইংরেজিতে বেশি দক্ষ। আইইএলটিএস দক্ষতা যাচাইয়ের এমন পরীক্ষা যা একইভাবে নেটিভ এবং অ-নেটিভ স্পিকার সবারই শেখা উচিত। সুতরাং, নেটিভ ও অ-নেটিভ উভয়ের জন্যই একই ফ্যাক্টর কাজ করে এবং সঠিক প্রস্তুতির মাধ্যমে একজন অ-নেটিভ স্পিকারও ব্যান্ড স্কোর ৯ পেতে পারে।

 

২। যেহেতু আমার ইংরেজি দক্ষতা ভালো তাই আমার প্রস্তুতির কোন প্রয়োজন নেই

পরিক্ষার ফরম্যাট, ট্রিক্স ও যথাযথ প্রস্তুতি ছাড়াই পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করা মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ হবে না এমনকি যদি আপনি ইংরেজিতে দক্ষও হন। এমন অনেক টিপস এবং কৌশল আছে যা আপনি শিখতে পারেন এবং ভালো প্রস্তুতির মাধ্যমে খুব ভালো ব্যান্ড স্কোর পেতে পারেন।

 

৩। বড় শব্দ আমাকে ভালো স্কোর পাইয়ে দিবে

আপনার লেখার মধ্যে অন্যান্য ব্যাকরণগত ভুলগুলি সহ জটিল শব্দগুলিকে ব্যাবহার আইইএলটিএস পরীক্ষককে প্রভাবিত করবে না। শব্দ প্রাসঙ্গিক ও যুক্তিযুক্ত হওয়া উচিত, এবং আপনি ‘পরিসীমা’ প্রদর্শন করতে সক্ষম হওয়া উচিত। আপনি যদি কোন নির্দিষ্ট শব্দ সম্পর্কে আত্মবিশ্বাসী বা নিশ্চিত না হন তবে তা ব্যবহার করবেন না।

 

৪। শুধুমাত্র স্যাম্পল টেস্টই বা নমুনা পরীক্ষায় প্রস্তুতি পরিক্ষায় খুব ভালো স্কোরের নিশ্চয়তা দিবে

নমুনা পরীক্ষা অনুশীলন আপনার ইংরেজি দক্ষতা উন্নত করতে সহায়তা করবে এবং পরীক্ষা প্রতিটি অংশে কিভাবে উত্তর করতে হয় তা জানতে সাহায্য করবে। কিন্তু চারটি দক্ষতা, শোনার, পড়ার, লেখার এবং বলার ক্ষেত্রে আপনার ইংরেজি আরও উন্নত করার জন্য, আপনাকে প্রতিদিন ইংরেজি পত্রিকা এবং জার্নাল পড়া, ইংরেজি সিনেমা / টিভি শোগুলি দেখা বা আপনার বন্ধু বা পরিবারের সাথে ইংরেজিতে কথা বলা, এসব অনুশীলন বা অভ্যাসও করতে হবে। 

 

৫। স্পিকিং এর স্কোর নির্ভর করে উক্ত টপিকে আমার জ্ঞান কতটুকু আছে সেটার উপর

পরীক্ষক আপনার টপিকের জ্ঞান সম্পর্কে আগ্রহী নয়। আপনার কন্টেন্ট সঠিক না ভুল সেটা কোন বিষয় নয়। পরীক্ষক শুধুমাত্র আপনার বলার দক্ষতা সম্পর্কে জানতে চায়। সুতরাং গ্রামার ঠিক রেখে ফ্লুয়েন্ট উত্তরের দিকে ফোকাস করুন।

 

৬। ব্রিটিশ, আমেরিকান বা অস্ট্রেলিয়ান উচ্চারণে কথা বলা ভালো স্কোর পেতে সহায়তা করবে

আপনার উচ্চারণ কোন মূল্যায়নের মাপকাঠি নয়। আপনার ইংরেজি ভাষা দক্ষতা মূল্যায়ন করাই আইইএলটিএস মুল লক্ষ্য। পরীক্ষককে নোটিশ হিসেবে পরামর্শ দেওয়া থাকে যে সে যেন অ্যাকসেন্টকে মাপকাঠি হিসেবে গ্রহণ না করে। স্বাভাবিক থাকুন – পরীক্ষক কেবল দেখতে চায় যে আপনি ইংরেজিতে কতটা ভালভাবে কথা বলতে পারেন। আপনাকে আপনার Fluency এবং Coherence, Lexical resource, Grammatical range এবং Accuracy, এবং Pronunciation এর উপর ভিত্তি করে মূল্যায়ন করা হবে।

 

৭। IELTS পরিক্ষায় পাশ করতে হলে আমাকে একটি নির্দিষ্ট স্কোর পেতে হবে

আইইএলটিএস পরিক্ষায় পাশ বা ফেইল বলে কোন বিষয় নেই। আপনার স্কোর নির্দেশ করে আপনি ইংরেজিতে কেমন দক্ষ। আপনাকে আপনার দক্ষতার উপর ভিত্তি করে প্রতিটা সেকশনের ০ থেকে ৯ পর্যন্ত স্কোরসহ গড়ে ০ – ৯ পর্যন্ত স্কোর দেওয়া হবে।

 

৮। আমি কম স্কোর পেতে পারি যদি আমার মতামত পরিক্ষকের মতামত থেকে ভিন্ন হয়

আইইএলটিএস কোন জ্ঞান বা মতামত পরীক্ষা নয়। পরীক্ষক প্রতি বিষয়েই আপনার সাথে দ্বিমত পোষণ করতে পারেন কিন্তু তারপরেও আপনি ব্যান্ড স্কোর ৯ পেতে পারেন। 

 

৯। স্কোর কেন্দ্র অনুসারে ভিন্ন হতে পারে 

আইইএলটিএস একটি মানসম্মত পরীক্ষা এবং তাই সারা বিশ্বের প্রতিটি কেন্দ্রে একই। সমস্ত পরীক্ষার কেন্দ্রগুলির একই মান আছে এবং একই মানদণ্ডের সাথে আপনাকে চিহ্নিত করে। 

 

১০। আইইএলটিএস পরিক্ষায় প্রতারণা বা দুর্নীতি করা সম্ভব

কেউ কেউ আপনাকে পরিক্ষায় ‘প্রতারণা’ শেখানোর মাধ্যমে উচ্চতর ব্যান্ড স্কোর পেতে দাবি করতে পারে। যদি আপনি এই রকম কিছু দেখতে পান, খুব সতর্ক থাকুন। আইইএলটিএস আপনাকে এবং আপনার ফলাফলগুলি গ্রহণকারী সংস্থার সুরক্ষার জন্য, প্রতারণা প্রতিরোধের জন্য অত্যাধুনিক এবং বহু স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দ্বারা সুরক্ষিত। প্রতারণার ফলে গুরুতর পরিণতি হবে যার মধ্যে রয়েছে ফলাফলগুলি আটকে রাখা, এবং ইমিগ্রেশন এজেন্সি এবং প্রতিষ্ঠানগুলি যা আইইএলটিএস স্স্কোর গ্রহণ করে আপনার আবেদনটি বাতিল করে এবং আপনাকে আবার আবেদন থেকে বিরত রাখতে রাখতে পারে। অসৎ আচরণে জড়িত পরীক্ষার্থীও আইনী পদক্ষেপের জন্য দায়বদ্ধ হতে পারে। প্রতারণামূলক পদ্ধতি নিবন্ধন এবং অর্থ প্রদানের জন্য ব্যবহৃত হলে আইইএলটিএস নিবন্ধন এবং ফলাফল স্থায়ীভাবে বাতিল করা যেতে পারে। আপনার ভবিষ্যত ঝুঁকিতে ফেলবেন না।

 

১১। একেক কেন্দ্র একেক টেস্ট অফার করে; কোনটা সহজ বেশি কোনটা কম

কোন পার্থক্য নেই। পরীক্ষা ক্যাম্বব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা মূল্যায়ন বিশেষজ্ঞদের দ্বারা লেখা হয় এবং বিশ্বজুড়ে ব্যবহারের জন্য পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিতে পাঠানো হয়। পরীক্ষকদের একইভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এবং চিহ্নিতকরণ স্কিমও একই।

 

১২। পরীক্ষক অনুসারে স্কোর ভিন্ন হয়

বিশ্বব্যাপী আইইএলটিএস পরীক্ষকগণ আইইএলটিএস পেশাদার নেটওয়ার্ক দ্বারা সমর্থিত; নিয়োগ, প্রশিক্ষণ, মানসম্মতকরণ এবং পরীক্ষার্থীদের পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা। সমস্ত পরীক্ষক একই পরীক্ষক প্রশিক্ষণ যা একটি পরীক্ষক প্রশিক্ষক দ্বারা সঞ্চালিত হয়। এই প্রশিক্ষণ সমস্ত আইইএলটিএস কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের দ্বারা অ্যাপ্লিকেশন একত্রীকরণ নিশ্চিত করতে সঠিকভাবে এবং নির্ভরযোগ্যভাবে মূল্যায়ন মানদণ্ড প্রয়োগ করতে সহায়তা করে।

 

 

সূত্রঃ ব্রিটিশ কাউন্সিল অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

অনুবাদক ও লেখকঃ মেহেদী হাসান

 

ফেসবুক মন্তব্য
Follow Me

Mahedi Hasan

Founder at BSCE
স্বপ্নবাজ ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু শিখতে ও জানতে ভাল লাগে। নিজে যা জানি সেটা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।
Follow Me
 
শেয়ার করুনঃ
Mahedi Hasan
Mahedi Hasan
স্বপ্নবাজ ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু শিখতে ও জানতে ভাল লাগে। নিজে যা জানি সেটা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *