একজন অদম্য বাংলাদেশী গবেষকের গল্প

উচ্চশিক্ষা বা গবেষণা দেশের বাইরে উন্নত দেশে, অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে করতে কার না ভালো লাগে। আমাদের মধ্যে যারা অনেক পড়াশোনা করতে আগ্রহী, গবেষণা করতে আগ্রহী, নিজেকে অনেক উচ্চতম জায়গায় দেখার স্বপ্ন দেখি, তারা বেশীরভাগই চাই সেরা কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বা গবেষণাগারে গবেষণা করতে। কিন্তু এটার জন্য অনেক সময়ই বিভিন্ন বাঁধা – বিপত্তির সম্মুখীন হতে হয়, মুখোমুখি হতে অনেক প্রতিকূলতার এবং প্রতিবন্ধকতার। এমতাবস্থায় অনেকেই নিজের সে স্বপ্নটা আর দেখতে পারি না, ভেঙ্গে পড়ি, হাল ছেড়ে দেই। আমাদের দেশে এইচ.এস.সি পাশ করে সবচেয়ে মূল্যবান একটা ধাপে এসে পড়তে হয়। কারণ এখান থেকেই মূলত আপনার চূড়ান্ত গন্তব্য পৌঁছানোর পথ তৈরি হয়, নির্দিষ্ট হয় আপনি নিজেকে শেষ পর্যন্ত কোথায় দেখতে চান। দেশের প্রায় সবারই লক্ষ্য থাকে দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে পড়া। কিন্তু সেটা কি সবার পূরণ হয় ? হয় না, কারণ দেশের শিক্ষার্থীর সংখ্যা অনুপাতে আসন সংখ্যার অপ্রতুলতা। তাই, বাধ্য হয়েই হোক, ইচ্ছায় হোক বা অনিচ্ছায় হোক, আমাদের মধ্য থেকে বিশাল একটা অংশকে দেশের প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হয়। কিন্তু সেখানেও একটা বড় বাঁধা থাকে অর্থের জন্য। কিন্তু আপনি যত ভালো প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন না কেন, আপনাকে কিছু কথা প্রায়ই শুনতে হয়, বিশেষ করে যারা এইচ.এস.সি পর্যন্ত ভালো বা খুব ভালো ছাত্র/ছাত্রী থাকে তাদের কে একটু বেশিই শুনতে হয়। যেমন,


তুমি এতো ভালো ছাত্র হয়েও কোথাও চান্স পাও নাই, কি পড়ছ ? খারাপ হয়ে গেছো, আগে ভালো ছিলে, কিসের তুমি ভালো ছাত্র ? অমুক ছাত্র তোমার চেয়েও খারাপ ছিল কিন্তু সে এখন অমুক সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছে আর তুমি ? সে জীবনে অনেক উঁচু পর্যায়ে যাবে, তুমি কি করবে? এসব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে কি হবে ? এসব সার্টিফিকেট এর কোন মূল্য নাই, শুধু শুধু টাকা নষ্ট করছ, সময় নষ্ট করছ। তার চেয়ে ভালো পড়াশোনা বাদ দিয়ে কোন কাজ কর, ব্লা ব্লা আরও কত কি।

কিন্তু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েও যে অনেক ভালো কিছু করা যায়, নিজের স্বপ্ন পূরণ করা যায় সেটার দৃষ্টান্ত হয়তো অনেক পাওয়া যাবে। তার মধ্যে এক জনের গল্পই আজ তুলে ধরছি। মোঃ নুরুন্নবী, গবেষক হিসেবে কাজ করেছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। হার্ভার্ডে মাস্টার্স/পিএইচডি/গবেষণা মানেই আমরা ভেবে থাকি যে, আমাকে অবশ্যই দেশের সেরা সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর/মাস্টার্স করতে হবে। কিন্তু সেটা ঠিক নয়, নুরুন্নবী বাংলাদেশে কোন সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় বা বিদেশে ব্যাচেলর করেন নি। ব্যাচেলর করেছেন বাংলাদেশের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় University of Development Alternative (UODA) তে ফার্মেসিতে। তারপরে উচ্চতর শিক্ষার জন্যে পাড়ি জমিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়াতে, তারপরে সেখানে গবেষণা করেছেন এবং পরবর্তীতে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়া ছিলেন The University of Utah (USA) তেও। বর্তমানে আমেরিকার অন্যতম খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস এট ইআই প্যাসো তে ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। তাকে নিয়েই একটি Feature ছাপা হয়েছে দেশের অন্যতম দৈনিক পত্রিকা “The Daily Observer”  এ, যেখানে তিনি তার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন। নিচে Feature টি দেওয়া হয়েছে। পড়তে পারেন, আশা করি হতাশা কেটে যাবে যারা নিজের অবস্থান বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ে নিজেকে ছোট ভাবেন। ভাবেন নিজেকে দিয়ে কিছুই হবে না, নিজের স্বপ্ন কখনোই পূরণ হবে না। যারা নিজের পড়াশোনা ও ক্যারিয়ার নিয়ে হতাশায় আছেন তাদের জন্য গবেষক নুরুন্নবীর অভিজ্ঞতা অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করতে পারে।
মোঃ নুরুন্নবী সম্পর্কে বিস্তারিতঃ http://scholar.harvard.edu/nurunnabi.md/home

ছবিঃ The Daily Observer

 

লেখকঃ মেহেদী হাসান

ফেসবুক মন্তব্য
Print Friendly, PDF & Email

Mahedi Hasan

Founder at BSCE
স্বপ্নবাজ ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু জানতে ও শিখতে ভালো লাগে। নিজে যা জানি তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।

আমার সম্পর্কেঃ http://www.hmahedi.com
Mahedi Hasan
 
শেয়ার করুনঃ

Mahedi Hasan

স্বপ্নবাজ ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু জানতে ও শিখতে ভালো লাগে। নিজে যা জানি তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি। আমার সম্পর্কেঃ http://www.hmahedi.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *