ভারতীয় ভিসার যাবতীয় তথ্যাবলি

ইউরোপের অনেক দেশের এমব্যাসি বাংলাদেশে না থাকায় আমাদেরকে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে যেতে হয় উক্ত দেশের এমব্যাসিতে ভিসা বা রেসিডেন্স পারমিট এর জন্য আবেদন করতে। তাই, আমি আজকে কিভাবে ভারতীয় ভিসার জন্য আবেদন করবেন এবং কি কি ডকুমেন্টস লাগবে সে ব্যাপারে আলোচনা করার চেষ্টা করব। আশা করি কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন।



ধাপ – ১

আপনাকে প্রথমে অনলাইনে ভারতের ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে, সেজন্য আপনাকে অনলাইনেই একটা ফরম পূরণ করতে হবে। ফর্ম পূরণের সর্বোচ্চ ১ সপ্তাহের মধ্যে ভিসা আবেদন আইভিএসি তে জমা দিতে হবে। অনলাইনে আবেদনের জন্য এই লিঙ্কে যানঃ অনলাইনে ভিসা আবেদন
অনলাইন ফরম পূরণের স্যাম্পল দেখুনঃ স্যাম্পল
বিঃদ্রঃ ২০ মিনিটের মধ্যেই ফর্ম পূরণ করতে হবে। 

ধাপ – ২ (ট্যুরিস্ট ভিসা)

এবার ডকুমেন্টস গুছানোর পালা। আপনার কি কি ডকুমেন্টস লাগবে তা নিচে দেওয়া হলঃ
১। পূরণ করা ভিসা অ্যাপ্লিকেশান ফরম (নির্দিষ্ট জায়গায় ছবি স্কেন করতে হবে ও আলাদা একটা ছবি ফরমের নির্দিষ্ট জায়গায় আঠা দিয়ে লাগাতে হবে। ২ টা ছবিই একই হতে হবে এবং ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হতে হবে)
২। অরিজিনাল পাসপোর্ট এবং ফটোকপি – ফ্রন্ট পেজ, কমপক্ষে ৬ মাস মেয়াদ থাকতে হবে (পুরাতন পাসপোর্ট সহ, যদি থাকে)
৩। সম্প্রতি ১ কপি রঙ্গিন পাসপোর্ট সাইজ ছবি (৩ মাস আগের নয়)
৫। ১ কপি NID/Birth Certificate (ফটোকপি)
৬। সম্প্রতি বিদ্যুৎ বিল/গ্যাস বিল/পানি বিল এর কপি (অরিজিনাল, ফটোকপি সহ)
৭। স্টুডেন্ট আইডি ফটোকপি
৮। কমপক্ষে ১৫০ ইউএস ডলার (আমার মতে ২০০ ডলার করা ভাল) এর এন্ডরস্মেন্ট সার্টিফিকেট ও পাসপোর্ট এ এন্ডরস এর পেজের ফটোকপি (অথবা ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড স্টেটমেন্ট বা সাম্প্রতিক ব্যাংক স্টেটমেন্ট)
ডকুমেন্টস চেকলিস্টঃ চেকলিস্ট

ধাপ -৪

সকল ডকুমেন্টস, পাসপোর্ট ও পাসপোর্ট সাইজ ছবি নিয়ে চলে যাবেন IVAC যমুনা ফিউচার পার্ক ব্রাঞ্চে (যারা ঢাকায় থাকেন তারা, অন্য বিভাগের জন্য উক্ত বিভাগের IVAC তে জমা দিবেন)। তারপর সেখানে আপনার ভিসা ফি জমা দেওয়া লাগবে (এটা ফিউচার পার্কেই পাবেন, মেইন গেইটে ঢুকে শপিং মলে ঢুকার আগে)।



সর্বোচ্চ ৫-১০ মিনিটের মধ্যেই কাজ শেষ হয়ে যাবে। তারপর সকল ডকুমেন্টস ও ভিসা ফি জমা দিয়ে চলে আসুন এবং ভিসার অপেক্ষায় থাকুন। সবকিছু ঠিক থাকলে ৭-১০ দিনের মধ্যেই ভিসা পেয়ে যেতে পারেন। ভিসা সাধারণত ১ বছরের জন্য দেওয়া হয়। 
ইন্ডিয়ান ভিসার জন্য আবেদন ও অন্যান্য তথ্য জানতে এই লিঙ্কে যানঃ
এছাড়া IVAC এর ওয়েবসাইট ও যেতে পারেন, ডকুমেন্টস লিস্ট ও অন্যান্য তথ্যের জন্যঃ
** যদি এই ফাইল সম্পর্কিত কোন তথ্য/পদ্ধতি পরিবর্তন হয়, তাহলে নিচের কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করার অনুরোধ রইল।

বিঃদ্রঃ-  দয়া করে, এমব্যাসিতে যাওয়ার আগে ডকুমেন্টসগুলো আরও একবার ভাল করে চেক করে নিবেন। আর সর্বশেষ তথ্যের জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং সেখান থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য দেখে নিবেন। আর কোন তথ্য বাদ পড়লে কমেন্ট এ বলে দিবেন, যোগ করে নিব। আরও একটা বিষয় উল্লেখ করা জরুরী, আমার পরিচিত দুই এক জন আছে যাঁরা Tourist VISA নিয়ে Embassy Face করেছিলো এবং ফেরার পথে তাঁদের VISA বাতিল করে দিয়েছিলো। তাই, আমার পরামর্শ থাকবে, যাদের দুইবার ভারতে যেতে হয় (রেসিডেন্ট পারমিট ও ভিসা সহ পাসপোর্ট আনতে) তাদের ট্যুরিস্ট ভিসায় করা ভালো নইলে এন্ট্রি ভিসা করতে পারেন যাদের একবার গেলেই হয়। আরও বলাবাহুল্য যে, এভাবে উল্লেখ করা হয় যে নিয়ম অনুসারে Entry VISA-নিয়েই Embassy Face করা উচিৎ কিন্তু যেহেতু Entry VISA 30 days এর বেশী Valid হয় না এবং একবারের বেশী এ VISA দিয়ে Entry করা যায়ও না তাই সকলে Tourist VISA নিয়েই India যেতে চায়। 

ধন্যবাদ ও শুভ কামনা।
এখানে শেষের কিছু অংশ তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন রাফি, তার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে। 
ফেসবুক মন্তব্য
Print Friendly, PDF & Email
 
শেয়ার করুনঃ

Mahedi Hasan

স্বপ্নবাজ ও ভ্রমণপিপাসু একজন মানুষ। নতুন কিছু জানতে ও শিখতে ভালো লাগে। নিজে যা জানি তা সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি। আমার সম্পর্কেঃ http://www.hmahedi.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *